x

এইমাত্র

  •  করোনার মধ্যে তিন মাসে ২০৬ নারী-শিশু ধর্ষণের শিকার
  •  করোনা প্রমাণ করেছে দুর্যোগ মোকাবিলায় আমরা কতটা শক্তিহীন: প্রধানমন্ত্রী
  •  গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় নতুন সংক্রমিত ২৪২৩ জন, মৃত ৩৫ জন
  •  বিশ্বে করোনায় মোট মারা গেছেন ৩ লাখ ৯১ হাজার ৯৯৭ জন
  •  বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সুস্থ ৩২ লাখ ২৭ হাজার ৯৭৫ জন

ট্যুরিস্ট ভিসায় এসে বন্যপ্রাণি নিয়ে গবেষণা করছেন বিদেশিরা

প্রকাশ : ০৯ জুলাই ২০১৯, ২০:২৫

জাগরণীয়া ডেস্ক

ট্যুরিস্ট ভিসায় এসে বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী নিয়ে গবেষণা করছেন একদল বিদেশি গবেষক।

২০১৭ সালের জীব-বৈচিত্র্য আইন অনুযায়ী, অনুমতি ছাড়া বহিরাগতদের সংরক্ষিত বনে প্রবেশ দণ্ডনীয় অপরাধ। অভিযোগ আছে, অসাধু কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় কোন ধরণের অনুমতির তোয়াক্কা না করে দুই মার্কিন গবেষক স্কট ট্রাগেসার ও এলেক্স উইলস মৌলভীবাজারের লাউয়াছড়া উদ্যানে গবেষণা করছেন। সেই সাথে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি ল্যাবেও তারা কাজ করতে যান, চেষ্টা করেন জিন সংক্রান্ত গবেষণারও। এছাড়া এই দুই গবেষক ভাওয়াল জাতীয় উদ্যানের সংরক্ষিত এলাকায়ও অনুমতি ছাড়া গবেষণা করেন বলে জানা গেছে। অভিযোগ আছে, বেসরকারি একটি সংগঠনের কর্মকর্তা শাহরিয়ার রহমান সিজার তাদের অবৈধ কাজে সহযোগীতা করেন। তবে সিজারের দাবি বিশ্ববিদ্যালয়টির হয়ে কাজ করছেন তারা।

তবে সিজারের বক্তব্যের সঙ্গে একমত নন ঐ বেসরকারি সংগঠন। তারা দাবি করেন, সংগঠনের অগোচরে এসব করছেন তিনি। 

বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় কর্মকর্তা এস এম জহির উদ্দিন আকনকে এই বিদেশী পর্যটকদের সাথে এক ছবিতে দেখা যায়। এ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি অ্যালেক্সের সঙ্গে আমি যায়নি। আমি যখন গিয়েছিলাম  তখন সিজার সেখানে ছিল। সাংবাদিকদের উদেশ্য করে তিনি বলেন, আপনাদের সমস্যাটা কি?

এদিকে, গত ২৬ জুন এ বিষয়ে সাংবাদিকদের অনুসন্ধান শুরু হয়েছে জানতে পেরে শাহরিয়ার রহমান সিজারকে তড়িঘড়ি করে অনুমতি দিয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

তবে, বন অধিদপ্তরের বন সংরক্ষক (অর্থ ও প্রশাসন) জাহিদুল কবির জানান, প্রভাবশালীদের চাপে তাদের অনুমতি দেয়া হয়েছে।

সূত্র: সময় টিভি

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত