x

এইমাত্র

  •  বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সুস্থ ৭৪ লাখ ৮৪ হাজার ১৮৪ জন
  •  বিশ্বে করোনায় মোট মারা গেছেন ৫ লাখ ৬৭ হাজার ৭৭৩ জন
  •  গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় নতুন সংক্রমিত ২৬৬৬ জন, মৃত ৪৭ জন

মেয়েদের বিপদ থেকে বাঁচাতে আসছে ‘বিপত্তারিণী ব্লুটুথ’

প্রকাশ : ১৫ আগস্ট ২০১৭, ১৬:৩৬

জাগরণীয়া ডেস্ক

এবার বাইরে বের হলে মেয়েদের সঙ্গে থাকবে নতুন নিরাপত্তরক্ষী। নাম বিপত্তারিণী ব্লুটুথ। এক বোতামেই সব সমস্যার সমাধান! শরীরে আটকানো থাকবে একটা বোতাম। বিপদে পড়লেই স্রেফ সেই বোতাম টিপতে হবে। তা হলেই সতর্ক হয়ে যাবে পুলিশ, প্রশাসন। সেই সঙ্গে মেয়েটির বাড়ির লোকও।

মেযেদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে এমনই এক ‘বিপত্তারিণী’ যন্ত্র নিয়ে আসছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ সরকার। রাজ্য পরিবহন দপ্তর ও কলকাতা পুলিশের যৌথ উদ্যোগে আসছে এই যন্ত্র। ভারতে এই প্রথম।

রাস্তায় বিপদে পড়লে মোবাইল মাধ্যমে পুলিশকে বার্তা দেওয়ার বন্দোবস্ত ইতিমধ্যে মজুদ। কিন্তু বিপদে পড়লে মাথা ঠাণ্ডা রেখে সংশ্লিষ্ট অ্যাপে ক্লিক করার সময় বা সুযোগ অনেকেই পান না।

এই সমস্যার সুরাহা করবে নতুন এই যন্ত্রটি, যা কিনা আকারে একটা বোতামের চেয়ে বড় নয়। সেই ব্লু টুথ লো এনার্জি বাটন (সংক্ষেপে, বিএলই) শরীরের যে কোনও জায়গায় আটকে রাখতে হবে। বেগতিক বুঝলে তাতে শুধু হাত ছুঁইয়েই ‘এসওএস’ পৌঁছে দেওয়া যাবে লালবাজার কন্ট্রোলে বা বাড়ির লোককে। জিপিএস মারফতে পুলিশ মুহূর্তে জেনে যাবে ঘটনার অবস্থান। পৌঁছে যাবে সেখানে।

নবান্ন সূত্রে খবর, সাধারণ মানুষের পথ নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে পশ্চিমবঙ্গ সরকার শিগগিরই নিয়ে আসছে একটি অ্যাপ। অ্যাপটির নাম হচ্ছে ‘পথদিশা রোড সেফটি’। আর তারই অংশ এই বিএলই বাটন। মোবাইলে ডাউনলোড করা অ্যাপের সঙ্গে যা লিঙ্ক করা থাকবে।

প্রথমে স্মার্ট ফোনে অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে। সেখানে নিয়মমতো নথিভুক্ত করতে হবে নিজস্ব আইডি। নিজের নাম তো বটেই, সঙ্গে তিনজন আত্মীয়-বন্ধুর ফোন নম্বর। ডাউনলোড হয়ে গেলে দেখা যাবে তিনটে অপশন- ঘটনা, দুর্ঘটনা, নারী নিগ্রহ (ইনসিডেন্ট, অ্যাক্সিডেন্ট, ভায়োলেন্স এগেনস্ট ওমেন)। এই ভাবে তৈরি হয়ে থাকবে প্রেক্ষাপট। এবার রাস্তায় কোথাও দুর্ঘটনা বা অপরাধের মুখে পড়লে অ্যাপের অ্যাক্সিডেন্ট বা ইনসিডেন্ট অপশনে ক্লিক করলেই পুলিশের কাছে বার্তা পৌঁছে যাবে। একইসঙ্গে নথিভুক্ত তিনজন আত্মীয়-বন্ধুর কাছেও মেসেজ পৌঁছে যাবে। আর নিগ্রহের শিকার নারীরা ‘ভায়োলেন্স এগেনস্ট উইমেন’ অপশনের মাধ্যমে পুলিশ ও পরিজনকে বিপদ সংকেত পাঠাতে পারবেন।

কিন্তু যদি মোবাইল বের করে অ্যাপ খুলে ঠিক জায়গায় ক্লিক করা সম্ভব না হয়? এই সম্ভাবনা মাথায় রেখেই অ্যাপের সঙ্গে যুক্ত ছোট্ট বোতামটি শার্টের কলারে বা পকেটে স্বচ্ছন্দে রেখে দেওয়া যাবে। বিপদ আসলে তাতে হাত ছোঁয়ালেই চলবে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে একবার চাপ দিতে হবে। দুর্ঘটনা ঘটলে বোতামে দুইবার চাপ দিতে হবে। সম্মানহানির আশঙ্কা বুঝলেই তিন নম্বর অপশনটি চেপে ধরতে হবে। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ সতর্ক হয়ে যাবে।

সূত্রের খবর, অভিনব এই পরিষেবাটি আগামী মাসেই চালু হতে পরিবহন দপ্তরের তরফে ইতিমধ্যে চালু হওয়া পথদিশা অ্যাপ বানিয়েছে যারা, সেই সংস্থাই নিয়ে আসছে নতুন প্রযুক্তি। বিএলই বাটনও তৈরি করছে তারা। সেটি অবশ্য বাইরে থেকে কিনতে হবে। 

আইডিয়েশান টেকনোলজি সলিউশন নামক সংস্থাটির দাবি, বাটনের দাম ৫০০-৬০০ টাকার মধ্যে রাখার চেষ্টা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র থেকে কয়েকটি বিএলই বাটন এনে পরীক্ষা করে সন্তোষজনক ফলও মিলেছে।

সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত