x

এইমাত্র

  •  বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সুস্থ ৭৪ লাখ ৮৪ হাজার ১৮৪ জন
  •  বিশ্বে করোনায় মোট মারা গেছেন ৫ লাখ ৬৭ হাজার ৭৭৩ জন
  •  গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় নতুন সংক্রমিত ২৬৬৬ জন, মৃত ৪৭ জন

ঈদে জুতার বাজারে বৈচিত্র্য

প্রকাশ : ২১ জুন ২০১৭, ১৬:৪৮

জাগরণীয়া ডেস্ক

এখন ঈদের শেষ সময়ের কেনাকাটা চলছে। পায়জামা-পাঞ্জাবি থেকে শুরু করে ফিটফাট ঈদের পোশাকের কেনাকাটার সঙ্গে থাকছে মানানসই হাল ফ্যাশনের জুতাও। পোশাকের বাজার থেকে জুতার বাজারে উপচে পড়া ভিড় এখন। কিনতে চান কমবেশি সবাই। ঢাকার বিভিন্ন বাজার এবং বড় বড় ব্র্যান্ডের দোকান সেজেছে রকমারি সব জুতার সমাহারে। স্লিপার থেকে স্যান্ডেল, মোকাসিন, লোফার, কেডস, ক্যাজুয়াল শু—সবই আছে ঈদের বাজারে। রং-নকশাতেও আছে বৈচিত্র্য।

ঈদ উপলক্ষে বাটা, অ্যাপেক্স, ওরিয়ন, লোটো, নাইকি, বে এম্পোরিয়াম, জেনিস, আড়ংসহ নানা ব্র্যান্ডের দোকানে রয়েছে জুতার বিশেষ সংগ্রহ। তাছাড়া বসুন্ধরা সিটি, যমুনা ফিউচার পার্ক, এলিফ্যান্ট রোডের মার্কেট, নিউমার্কেট, মৌচাক, মালিবাগ, পলওয়েল মার্কেট, ইস্টার্ন প্লাজা, গুলিস্তান, সদরঘাটসহ অন্যান্য বাজারের দোকানগুলোতে রয়েছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের জুতা।

জানা যায়, এবারের ঈদের জুতায় বর্ষা উপযোগী উপকরণ ব্যবহার করা হয়েছে। ডিজাইনের ভিন্নতা ও রঙের বৈচিত্র্যও আছে। বোতাম, ফুল, ফিতা আর কৃত্রিম পাথর ব্যবহার করা হয়েছে ঈদের স্যান্ডেল ও জুতায়। স্যান্ডেলের ফিতার ডিজাইনেও রয়েছে ভিন্নতা। ক্রস, রাউন্ড, সেমিরাউন্ড, বেল্টের মতো ফিতার নকশা। রয়েছে গোড়ালি ও সামনের অংশে লেস বা ফিতা পেঁচানো স্যান্ডেল। স্যান্ডেলের নকশায় ব্যবহৃত হয়েছে বোতাম, জরি, চুমকি ইত্যাদি। 

ঈদে সাধারণত পাজামা-পাঞ্জাবির সঙ্গে স্যান্ডেল পরা হয়। তাই জুতার চেয়ে ছেলেরা বেশি কিনছে স্যান্ডেল। বেশিরভাগ মা-বাবা শিশুদেরও স্যান্ডেলই কিনে দিচ্ছেন। তবে মেয়েরা প্রাধান্য দিচ্ছে নতুন কিছুকে। ঈদ উপলক্ষে সব পণ্যের দামই কিছুটা বেড়েছে। জুতার দামও অনেক বেড়েছে বলে অভিযোগ করেছে ক্রেতারা। দোকানিরা অবশ্য মূল্যবৃদ্ধির বিষয়টি অস্বীকার না করলেও দাম কিছুটা কমিয়ে বলছে। 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত