x

এইমাত্র

  •  করোনার মধ্যে তিন মাসে ২০৬ নারী-শিশু ধর্ষণের শিকার
  •  করোনা প্রমাণ করেছে দুর্যোগ মোকাবিলায় আমরা কতটা শক্তিহীন: প্রধানমন্ত্রী
  •  গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় নতুন সংক্রমিত ২৪২৩ জন, মৃত ৩৫ জন
  •  বিশ্বে করোনায় মোট মারা গেছেন ৩ লাখ ৯১ হাজার ৯৯৭ জন
  •  বিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সুস্থ ৩২ লাখ ২৭ হাজার ৯৭৫ জন

'চিকিৎসাবিজ্ঞানের উন্নয়নে আরও মনোনিবেশ করবো'

প্রকাশ : ১৮ আগস্ট ২০১৯, ১৩:২৬

জাগরণীয়া ডেস্ক

ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) দীর্ঘ ৩৩ ঘণ্টার সফল অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে রাবেয়া ও রোকেয়া যমজ শিশুকে আলাদা করার ভূয়সী প্রশংসা করে ভবিষ্যতে আওয়ামী লীগ সরকার চিকিৎসাবিজ্ঞানের উন্নয়নে আরও কাজ করবে বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গত ২ আগস্ট ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) বাংলাদেশি ও হাঙ্গেরির চিকিৎসক এবং অন্য কর্মচারীদের সমন্বয়ে গঠিত চিকিৎসক দলের মাধ্যমে পাবনার চাটমোহর উপজেলার যমজ শিশু রাবেয়া ও রোকেয়াকে আলাদা করা হয়ত। ১৬ আগস্ট (শুক্রবার) সন্ধ্যায় গণভবনে এক অনুষ্ঠানে এই চিকিৎসক দলের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, "এ যমজ শিশুর অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে বাংলাদেশের চিকিৎসকেরা বিশাল অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। এখন আমরা এ সাফল্যের ধারা অব্যাহত রাখার মাধ্যমে চিকিৎসাবিজ্ঞানের আরও উন্নয়নে মনোনিবেশ করব"।

এ সফল অস্ত্রোপচারের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হাঙ্গেরির চিকিৎসক দলের সদস্যসহ সব চিকিৎসক, নার্স ও সংশ্লিষ্ট সকলকে অভিনন্দন জানান। 

তিনি বলেন, বাংলাদেশি ও হাঙ্গেরির চিকিৎসকেরা একটি অসাধারণ কাজ করেছেন। এ সফল অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে বাংলাদেশের সরকারি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানগুলোর চিকিৎসকেরা নতুন অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। আশা করি যমজ শিশু দুটি পুরোপুরি সুস্থ হয়ে শিগগিরই মায়ের কোলে ফিরে যাবে।

অনুষ্ঠানে রাবেয়া-রোকেয়ার বাবা রফিকুল ইসলাম তার যমজ শিশুদ্বয়ের চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহণ করায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং এই অস্ত্রোপচারের সঙ্গে জড়িত বাংলাদেশ ও হাঙ্গেরির চিকিৎসকদের ধন্যবাদ জানান।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং হাঙ্গেরি সরকারের সংস্থা ডিফেন্সলেস পিপল ফাউন্ডেশনের (এডিপিএফ) সহযোগিতায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে রাবেয়া-রোকেয়ার অস্ত্রোপচার সম্পন্ন করা হয়। এর আগে তাদের চিকিৎসার জন্য হাঙ্গেরি পাঠানো হয়। দেশে-বিদেশে তাদের চিকিৎসার সব খরচ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বহন করেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত